ইউএনওর ওপর হামলা : রবিউল ৬ দিনের রিমান্ডে

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তাঁর বাবার ওপর হামলার ঘটনায় গ্রেপ্তার রবিউল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

আজ শনিবার বিকেলে রবিউলকে দিনাজপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইসমাইল হোসেনের আদালতে হাজির করে মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা। পরে শুনানি শেষে বিচারক রবিউলের ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক ইসরাইল হোসেন বিকেল পৌনে ৬টায় এনটিভি অনলাইনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো বলেন, ‘মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রবিউলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছিলেন। শুনানি শেষে আদালত ছয় দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।‘

তদন্তকারী সংস্থা জানিয়েছে, রবিউল ইউএনওর বাসায় মালি হিসেবে কাজ করেন। আজকেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গত ২ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে একদল দুর্বৃত্ত মই বেয়ে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনের ভেন্টিলেটর ভেঙে বাসায় ঢুকে তাঁকে হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে শুরু করে। এ সময় ইউএনওর চিৎকার শুনে পাশের কক্ষে থাকা তাঁর বাবা ছুটে এসে মেয়েকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে দুর্বৃত্তরা তাঁকেও আঘাতে জখম করে। পরে কোয়ার্টারের অন্য বাসিন্দারা তাঁদের চিৎকার শুনে পুলিশকে খবর দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁদের রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ওয়াহিদা খানমকে ঢাকায় আনা হয়। রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। ধীরে ধীরে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন।

এই ঘটনায় ইউএনও ওয়াহিদা খানমের বড় ভাই শেখ আরিফ হোসেন বাদী হয়ে গত ৩ সেপ্টেম্বর রাতে ঘোড়াঘাট থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করা হয়।

Add Comment