করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে ট্রাম্পের মুখ ছোঁয়া বন্ধ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজের মুখ স্পর্শ করতে পারছেন না। কয়েক সপ্তাহ ধরেই চলছে এ অবস্থা। এ জন্য তাঁর খারাপও লাগে। তিনি এতটাই বেকায়দায় রয়েছেন যে তা প্রকাশ্যে বলেও দিয়েছেন।

আসলে ট্রাম্পের চেহারায় কিছু হয়নি। তাঁর মুখ ছোঁয়া বন্ধ মূলত করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে। এ ভাইরাসের সংক্রমণে প্রতিদিনই রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। মৃত্যুর মিছিলও বড় হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত শতাধিক কোভিড–১৯ রোগী শনাক্ত হয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের। দেশটির ওয়াশিংটন ও ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে জারি করা হয়েছে স্বাস্থ্যগত জরুরি অবস্থা।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় গত বুধবার হোয়াইট হাউসে এয়ারলাইন নির্বাহী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করেন ট্রাম্প। ওই বৈঠকে পরিচ্ছন্নতা পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা হয়। এয়ারলাইনের নির্বাহী কর্মকর্তারা ট্রাম্পকে জানান, তাঁরা যাত্রীবাহী উড়োজাহাজগুলোয় পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম জোরদার করেছেন। এ সময় হোয়াইট হাউসের করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলাবিষয়ক সমন্বয়ক ডেবোরাহ বার্ক্স সবাইকে স্মরণ করিয়ে দেন, বারবার হাত ধুতে হবে, নিজের মুখ স্পর্শ করা চলবে না।

এ সময় ডেবোরাহ বার্ক্সের কথা কেড়ে নেন ট্রাম্প। তিনি মজা করে বলেন, ‘কয়েক সপ্তাহ ধরে আমি নিজের মুখ স্পর্শ করিনি! এ জন্য আমার খারাপ লাগে!’

Add Comment