Home Covid19 কোভিড-১৯ আপডেট: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে মহামারীতে দুই বছরে মারা গেছে ১৫...

কোভিড-১৯ আপডেট: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে মহামারীতে দুই বছরে মারা গেছে ১৫ মিলিয়ন লোক

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়া কুইন্সল্যান্ডে ১১ জন, ভিক্টোরিয়াতে নয়জন এবং নিউ সাউথ ওয়েলসে (NSW) সাতজন সহ কমপক্ষে ২৯ জন কোভিড-১৯-এ মারা গেছে।

অস্ট্রেলিয়ায় নতুন কেস, হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুসংখ্যা জানতে সর্বশেষ কোভিড-১৯ তথ্য

নিউ সাউথ ওয়েলস ১১,৩০৯ জনের নতুন সংক্রমণের ঘটনা রিপোর্ট করেছে, যার মানে এই অনেক লোককে তাদের প্রথমবারে পজেটিভ হওয়ার ৯১ দিন পরে দ্বিতীয়বার কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া গেছে।

পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার ৮০ শতাংশ জনসংখ্যার ১৬ বছর বা তার বেশি বয়সীদের এখন তিনটি করে টিকা দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার স্টেটে ৯,৩২৮ টি নতুন সংক্রমণ রেকর্ড করা হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ১ জানুয়ারী ২০২০ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০২১-এর মধ্যে ১৪.৯ মিলিয়ন অতিরিক্ত মৃত্যু সংখ্যার রিপোর্ট করেছে৷ এই অতিরিক্ত মৃত্যু প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কোভিড-১৯ মহামারীর সাথে জড়িত৷

পরোক্ষভাবে-সংশ্লিষ্ট মৃত্যুগুলি অন্যান্য স্বাস্থ্যগত অবস্থার জন্য দায়ী যার জন্য লোকেরা অতিরিক্ত চাপের মধ্যে থাকা স্বাস্থ্য ব্যবস্থার কারণে প্রতিরোধ করতে পারেনি এবং চিকিত্সার সুযোগ পায়নি।

বিরল রক্ত ​​​​জমাট বাঁধাজনিত ঝুঁকির কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য জনসন অ্যান্ড জনসনের কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের ব্যবহার সীমাবদ্ধ করেছে। অস্ট্রেলিয়া ২০২১ সালের জুনে এই ভ্যাকসিনটিকে অস্থায়ীভাবে অনুমোদন করেছে, কিন্তু এটি তাদের টিকাদান কর্মসূচির অংশ নয়।

তবে এস্ট্রজেনিকা (AstraZeneca), ফাইজার (Pfizer), মডার্না (Moderna) এবং নোভাভেক্স (Novavax) অস্ট্রেলিয়ার অনুমোদিত ভ্যাকসিন।

ল্যানসেটে ডব্লিউএইচওর অর্থায়নে করা একটি গবেষণায় দাবি করা হয়েছে যে কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের ওপর রেমডেসিভির চিকিৎসার কোনো উল্লেখযোগ্য প্রভাব নেই।

তবে অন্যান্য হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের মধ্যে মৃত্যু বা ভেন্টিলেশনের জন্য এই চিকিত্সার কিছুটা প্রভাব রয়েছে। ২০২০ সালে রেমডেসিভির ব্যবহার অনুমোদনকারী প্রথম দেশগুলির মধ্যে অস্ট্রেলিয়াও ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here