পুরো বছরই কিস্তি পরিশোধে ছাড় পেলেন ঋণগ্রহীতারা

ঋণগ্রহীতাদের জন্য আবারো সুসংবাদ দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এর আগে ঋণের কিস্তি পরিশোধে ছাড় দিয়ে দুই দফায় সময় বাড়ানোর পর এবার তৃতীয় দফা সময় বাড়ানো হলো। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত কোনো গ্রাহক কিস্তি পরিশোধ না করলে, তাকে খেলাপি দেখানো যাবে না। এর ফলে পুরো বছরের জন্যই ঋণ পরিশোধে ছাড় পেলো গ্রাহকরা।

করোনায় বিধ্বস্ত অর্থনৈতিক দুর্যোগে ব্যবসায়ীদের সুরক্ষা দিতে সবার আগে ঋণের কিস্তি পরিশোধ শিথিল করে বাংলাদেশ ব্যাংক। মার্চের শেষ সপ্তাহেই জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত কিস্তি পরিশোধ না করলেও গ্রহীতাকে ঋণ খেলাপি না করার নির্দেশনা দেয়া হয়। পরে এ সময়সীমা বাড়িয়ে নির্ধারণ করা হয় ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। সে সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই ঋণ পরিশোধের মেয়াদে আরো ছাড় দিয়ে আজ সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, গত ১ জানুয়ারি ঋণের শ্রেণীমান যা ছিল, আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ে ওই ঋণ তার চেয়ে বিরূপমানে শ্রেণীকরণ করা যাবে না। তবে কোনো ঋণ শ্রেণীমানের উন্নতি হলে তা যথাযথ নিয়মে শ্রেণীকরণ করা যাবে।

১ জানুয়ারিতে বিদ্যমান মেয়াদি (স্বল্পমেয়াদি কৃষি ঋণ ও ক্ষুদ্রঋণসহ) ঋণের বিপরীতে ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর সময়ে প্রদেয় কিস্তিগুলো বিলম্বিত হিসেবে বিবেচিত হবে বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

Add Comment