ভারতে সোমবার একদিনে নতুন করে ৪৭ হাজার ৭০৩ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৪ লাখ ৮৩ হাজার ১৫৬।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৬৫৪ জনের। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৩ হাজার ৪২৫।

এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৯ লাখ ৫২ হাজার ৭৪৩ জন।

পশ্চিমবঙ্গেও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে কোভিড সংক্রমণ। রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, সোমবার পশ্চিমবঙ্গে দুই হাজার ১১২ জন নতুন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। সোনে এখন পর্যন্ত ৬০ হাজার ৮৩০ জনের শরীরে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাসকে ‘অপদেবতা’ আখ্যা দিয়ে এর হাত থেকে মানবজাতিকে ‘রক্ষায়’ গণ-উপাসনার ডাক দিয়েছে আসামের বেশকিছু ধর্মীয় সংগঠন। ভারতীয় সময় ৩০ জুলাই সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিট থেকে আসামজুড়ে বৈষ্ণব সত্রগুলির যৌথমঞ্চ ‘সত্র মহাসভা’, প্রধান আটটি সত্রের সত্রাধিকার ও ১৬টি ধর্মীয় সংগঠনের তত্ত্বাবধানে গণ-উপাসনা পরিচালিত হবে।

আয়োজকদের দাবি, সমুদ্রমন্থনে ওঠা বিষ নিজের কণ্ঠে ধারণ করে যন্ত্রণায় ছটফট করছিলেন নীলকন্ঠ মহাদেব। শেষ পর্যন্ত শ্রাবণ মাসের একাদশীতে ভগবান বিষ্ণু মহাদেবের কণ্ঠে স্পর্শ করে যন্ত্রণার উপশম ঘটান। অমৃতস্পর্শে গরলযন্ত্রণা নির্মূল হওয়ার সেই তিথিতেই করোনা নির্মূলের উদ্দেশ্যে আসামের ঘরে-ঘরে, মন্দিরে, নামঘরে জ্বালানো হবে প্রদীপ। বাজবে শঙ্খ, ঘণ্টা, উঠবে উলুধ্বনি। পুজো চলবে ১৫ মিনিট।

সত্র মহাসভার সভাপতি জ্যোতির্ময় প্রধানী বলেন, ‘ওষুধ ও প্রতিষেধক বের করতে বিজ্ঞানীরা তাদের মতো করে গবেষণা চালাচ্ছেন। এই মারণ-জীবাণু থেকে মুক্তি পেতে রাজ্যেবাসী প্রার্থনা করলে ক্ষতি কী!’

Add Comment