মসজিদে বিস্ফোরণ : অন্যদের প্রতিবেদনও বিবেচনায় নেবে সিআইডি

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় অন্যান্য কমিটির প্রতিবেদনও বিবেচনায় নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে মামলার তদন্তকারী সংস্থা পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

আজ শনিবার দুপুরে বাইতুস সালাত জামে মসজিদ পরিদর্শন করে সিআইডির উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) মো. মাঈনুল হাসান একথা বলেন। বিস্ফোরণের ঘটনায় ফতুল্লা থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

মাঈনুল হাসান বলেন, ‘আমরা আমাদের সর্বোচ্চ পেশাদারি মনোভাব নিয়ে এই ঘটনার তদন্ত করব। ওই ঘটনার তদন্তে সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া যাবে তাদেরকে অভিযুক্ত করে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।’

ডিআইজি বলেন, ‘গ্যাস থেকে সম্ভবত এই ঘটনাটি ঘটতে পারে। তবে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত নির্দিষ্ট করে কিছু বলা মুশকিল। এখানে গ্যাস বা বিদ্যুতের যেসব বিষয় আছে তা আমরা খতিয়ে দেখব। এই ঘটনার পর অন্যান্য যে তদন্ত কমিটি করা হয়েছে, তাদের তদন্ত আমরা বিবেচনায় নিব। তারপর আমরা আমাদের ফরেনসিক টিমের সাহায্য নিয়ে চূড়ান্ত প্রতিবেদন তৈরি করব। তবে এখনও কোনো তদন্ত প্রতিবেদনই আমরা হাতে পাইনি।’

আলামত পাওয়া গেছে কি-না জানতে চাইলে মাঈনুল হাসান আরো বলেন, ‘ফায়ার সার্ভিস, তিতাস গ্যাসসহ আমাদের নিজস্ব ফরেনসিক টিম আছে। ফরেনসিক টিমের তত্ত্বাবধানে আলামত সংগ্রহ করা হচ্ছে। স্থানীয় লোকজনের সাক্ষ্যগ্রহণ, আলামত যেগুলো আছে সেগুলো পরীক্ষা করা হবে। সবকিছু মিলিয়ে যে ধরনের তথ্য-প্রমাণ পাওয়া যাবে, সেগুলো নিয়ে তদন্তকাজ সম্পন্ন করব আমরা।’

গত ৪ সেপ্টেম্বর এশার নামাজ পড়ার সময় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণ ঘটে। ওই ঘটনায় দগ্ধ ৩৭ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। এখন পর্যন্ত ৩১ জন মারা গেছে। পাঁচজনের অবস্থা এখনো আশঙ্কাজনক। বিস্ফোরণের ঘটনার একদিন পর ফতুল্লা থানায় একটি মামলা হয়। পরে মামলাটি সিআইডির কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন, তিতাস গ্যাস ও ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পক্ষ থেকে তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

Add Comment