রাজধানীতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৪

রাজধানীর পল্লবীতে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে এক কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত শনিবার দিবাগত রাতের ওই ঘটনায় গতকাল রোববার চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার সকালে পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াজেদ আলী এনটিভি অনলাইনকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ‘পল্লবী থানার ১১ নম্বর সেকশনের সুগন্ধা আবাসিক এলাকার ই-ব্লকের ৬২ নম্বর বাসায় নিয়ে ওই কিশোরীকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণ করা হয়। ওই কিশোরীর বাবা গতকাল বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা করেন। এ ঘটনায় জড়িত চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন মোহাম্মদ জুয়েল (২২), মো. আলামিন (২৩), মো. হৃদয় (২৪) ও আবদুর রহমান মিন্টু (২৬)।

ওসি কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ‘মা-বাবার বিচ্ছেদের পর কিশোরী নোয়াখালীতে মায়ের কাছেই থাকত। দু-তিনদিন আগে ওই কিশোরী নোয়াখালী থেকে বাবার কাছে বেড়াতে ঢাকায় এসেছিল। শনিবার রাতে বাবা বকা দিলে রাগ করে বাসা থেকে বের হয়ে যায় কিশোরী। এরপর বাসা খুঁজে না পেয়ে একটি দোকানের পাশে দাঁড়িয়ে কাঁদছিল। সে সময় দুই যুবক তাকে বাসায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে একটি বাসায় নিয়ে যায়। যাওয়ার পথেই খবর দেওয়া হয় আরো দুজনকে। এরপর কিশোরীকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে চারজন ধর্ষণ করে। রোববার সকালে ঘুম থেকে উঠে কিশোরীটি বুঝতে পারে সে নির্যাতনের শিকার হয়েছে। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।’

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানান ওসি।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা তাঁদের অপরাধের কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন পল্লবী থানার ওসি।

Add Comment