Home Bangladesh শেয়ার বাজার নিয়ে আশা, নীতিমালা লঙ্ঘনের দায়ে ব্যাংক নিয়ে হতাশা

শেয়ার বাজার নিয়ে আশা, নীতিমালা লঙ্ঘনের দায়ে ব্যাংক নিয়ে হতাশা

66
0

একদিকে আশার গল্প, অন্যদিকে হতাশা। আশার কথা হলো, ঊর্ধ্বমুখী পুঁজিবাজারে মূলধন আরও চার হাজার কোটি টাকা বেড়েছে। শুধু তাই নয়, এই বাজার ধীরে ধীরে বড় হচ্ছে। অন্যদিকে হতাশার চিত্রে দেখা যাচ্ছে, নীতিমালা লঙ্ঘনের মাধ্যমে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে গিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছে বেশ কয়েকটি ব্যাংক।

আশাব্যঞ্জক ব্যাপার, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানের তালিকাভুক্তির জন্য এসএমই প্ল্যাটফর্মে লেনদেন চালু করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। গত ৩০ সেপ্টেম্বর দুপুরে রাজধানীর নিকুঞ্জে ডিএসই’র কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন হয়। এদিন এসএমই প্ল্যাটফর্মে ছয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের লেনদেন হয়েছে ৩ হাজার কোটি টাকা। ছয়টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পাঁচটিরই শেয়ারের দাম বেড়েছে।

ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) তারেক আমিন ভূঁইয়ার আশা, ‘এসএমই প্ল্যাটফর্ম পুরোপুরি চালু হলে দেশের পুঁজিবাজার নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবে।’

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের সবশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের জন্য ব্যাংকগুলোর ২০০ কোটি টাকার বিশেষ তহবিলের নীতিমালা লঙ্ঘনের দায়ে এক্সিম ব্যাংক ও প্রিমিয়ার ব্যাংককে জরিমানা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ব্যাংক দুটির ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের কাছে এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। একই অপরাধে আরও চারটি ব্যাংককে সতর্ক করা হয়েছে। এগুলো হলো ইস্টার্ন ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংক এবং অগ্রণী ব্যাংক।

এর আগে ব্যাংক কোম্পানি আইনের সীমা লঙ্ঘন করে পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারে বিনিয়োগ করায় ব্যাংক কোম্পানি আইনের ২৬ক (৩) ধারার আওতায় এনআরবি ব্যাংককে ৪৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করে বাংলাদেশ ব্যাংক। এছাড়া কোম্পানি আইনের সীমা লঙ্ঘনের মাধ্যমে বিনিয়োগ করায় এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের জরিমানা হয়েছে ২৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

দরপতন ঠেকাতে ২০২০ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি দেশের পুঁজিবাজারে ব্যাংকগুলোর বিনিয়োগের জন্য ২০০ কোটি টাকার বিশেষ তহবিল গঠনের সুযোগ দেয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বিশেষ এই তহবিলের অর্থ বিনিয়োগের সুনির্দিষ্ট নীতিমালাও জারি করা হয়। কিন্তু কিছু ব্যাংক ওই নীতিমালা লঙ্ঘনের মাধ্যমে বিনিয়োগ করছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে তদন্তের পর সেগুলোকে জরিমানা ও সতর্ক করে বাংলাদেশ ব্যাংক।

জানা গেছে, প্রিমিয়ার ও এক্সিম ব্যাংক নীতিমালা লঙ্ঘন করে শেয়ার কিনেছে। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংকের তদারকি কার্যক্রম শুরুর পরপর সেগুলো বিক্রি করে দেয় প্রতিষ্ঠান দুটি। এ কারণে প্রাথমিকভাবে তাদের ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা হয়েছে। অপর চার ব্যাংককে সতর্ক করে বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে নীতিমালা লঙ্ঘন করে এই তহবিল থেকে বিনিয়োগ করলে ‘বিশেষ তহবিল’ বাতিল করা হবে।

বাজারের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, গত সপ্তাহে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে চারদিনই ঊর্ধ্বমুখী ছিল শেয়ার বাজার। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন বেড়েছে চার হাজার কোটি টাকার ওপরে। এর মাধ্যমে দুই সপ্তাহে ডিএসই’র বাজার মূলধন বাড়লো সাড়ে ৬ হাজার কোটি টাকার বেশি। আগের সপ্তাহে ডিএসই’র বাজার মূলধন প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা কমেছে।

গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসই’র বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৮১ হাজার ৫৪৩ কোটি টাকা, যা আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৫ লাখ ৭৭ হাজার ৩৬ কোটি টাকা। অর্থাৎ সবশেষ সপ্তাহে ডিএসই’র বাজার মূলধন বেড়েছে ৪ হাজার ৪০৭ কোটি টাকা। আগের সপ্তাহে ডিএসই’র বাজার মূলধন বেড়েছিল ২ হাজার ৫৬১ কোটি টাকা। ফলে টানা দুই সপ্তাহে ডিএসই’র বাজার মূলধন বাড়লো ৬ হাজার ৯৬৮ কোটি টাকা। অবশ্য দুই সপ্তাহের এই উত্থানের আগে বাজার মূলধন কমেছিল ১১ কোটি ৮৪৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন হারানোর পর প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকা ফিরে এসেছে।

গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ১৪৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। দাম কমেছে ২২১টির। অপরিবর্তিত রয়েছে ১১টির দাম।

বাজারের তথ্য বলছে, গত সপ্তাহে ডিএসই’র প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ৭৮ দশমিক ৪৪ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে সূচকটি বাড়ে ২২ দশমিক ২৯ পয়েন্ট।

প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহে বেড়েছে ইসলামী শরিয়াহ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ সূচকও। গত সপ্তাহে সূচকটি বেড়েছে ১১ দশমিক শূন্য ৪ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে এই সূচক বেড়েছে ৩ দশমিক ৯৫ পয়েন্ট।

অপরদিকে বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচকও গত সপ্তাহে বেড়েছে। সপ্তাহজুড়ে সূচকটি বেড়েছে ৩৬ দশমিক ৯৭ পয়েন্ট। আগের সপ্তাহে এই সূচক কমে দশমিক ৯৯ পয়েন্ট।

গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ২২৯ কোটি ১৩ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ১ হাজার ৯৪১ কোটি ৮৯ লাখ টাকা।

বাজারের পরিসংখ্যান বলছে, গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১১ হাজার ১৪৫ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ৯ হাজার ৭০৯ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ মোট লেনদেন বেড়েছে ১ হাজার ৪৩৬ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here