সিডনির একটি মসজিদে ভাঙচুর, ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ ১০০,০০০ ডলার, একজন গ্রেপ্তার

ওয়েস্টার্ন সিডনির একটি মসজিদে ভাঙচুর করে ১০০,০০০ ডলার ক্ষয়-ক্ষতির অভিযোগে ২০ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রবিবার রাতে অবার্নের গ্যালিপোলি মসজিদে কিছু অ্যান্টিক ঝাড়বাতি, একটি প্লাজমা টেলিভিশন এবং ১৩ টি বড় জানালা বিনষ্ট করা হয়েছে বলে নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশ জানিয়েছে।রবিবার রাতেই গিল্ডফোর্ড থেকে সেই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
তারা বলেছে, মানসিক স্বাস্থ্য-সমস্যার কারণে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।
গ্যালিপোলি টার্কিশ কালচারাল ফাউন্ডেশনের একজন মুখপাত্র বলেন, ভাঙচুরের ঘটনার সময়ে কিছু সংখ্যক মুসুল্লি মসজিদে ছিলেন।
মসজিদটি পরিচালনা করে গ্যালিপোলি টার্কিশ কালচারাল ফাউন্ডেশন। এর চেয়ার আব্দুর রহমান আসারগ্লু বলেন, এই মসজিদটি “যারা অস্ট্রেলিয়াকে নিজের দেশ মনে করে তাদের মাঝে শান্তি ও সম্প্রীতি বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে কাজ করে এবং সিডনিতে আমাদের স্থানীয় কমিউনিটির চাহিদা পূরণ করে।”

তিনি আরও বলেন, অবার্ন গ্যালিপোলি মসজিদ অস্ট্রেলিয়ায় শান্তি ও সম্প্রীতির বাণী বিস্তার করা চালিয়ে যাবে।

অস্ট্রেলিয়া সরকারের পক্ষ থেকে এই ভাঙচুরের ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন অ্যাক্টিং মাল্টিকালচারাল অ্যাফেয়ার্স মিনিস্টার অ্যালান টাজ। তিনি একে “মর্মাহতকর কার্যক্রম” বলে অভিহিত করেন।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন,

“যারা আমাদের কমিউনিটিকে বিভক্ত করতে চায়, তারা কখনই সফল হবে না।”

মিস্টার টাজ আরও বলেন, এ বছরের শুরুর দিকে বুশফায়ার রিলিফ ফান্ডের জন্য এই মসজিদটি প্রায় ৫,০০০ ডলার অনুদান সংগ্রহ করেছিল। এ ছাড়া, সম্প্রতি করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর সময়েও তারা মানুষের সেবা করেছে।

নিউ সাউথ ওয়েলসের লেবার নেতা জোডি ম্যাকেই বলেন, এই আক্রমণে সকল অস্ট্রেলিয়ানের ব্যথা অনুভব করা উচিত।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন,

“যারা এই মসজিদে ইবাদত করেন, তাদের সবার সঙ্গে আমাদের চিন্তা রয়েছে।”

Add Comment