সিলেটে রায়হান হত্যা মামলায় এবার এএসআই গ্রেপ্তার

সিলেটের বন্দর বাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান আহমদ হত্যা মামলায় এবার পুলিশের এক সহকারী উপপরিদর্শককে (এএসআই) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সিলেট পুলিশ লাইন্স থেকে গতকাল বুধবার রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করে মামলার তদন্ত সংস্থা পিবিআই।

গ্রেপ্তার হওয়া এএস‌আইয়ের নাম আশেক এলাহী। রায়হানকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ ওঠার পর তাঁকে বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ি থেকে প্রত্যাহার করা হয়।

আজ দুপুরে আশেক এলাহীকে আদালতে তোলা হবে। পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার খালেদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আদালতে তাঁরা রিমান্ডের আবেদন করবেন।

রায়হান হত্যা মামলায় এ নিয়ে তিন পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস দুদফা রিমান্ড শেষে কারাগারে ও কনস্টেবল হারুনুর রশিদ রিমান্ডে রয়েছেন। এ ছাড়া এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে ছিনতাইয়ের অভিযোগকারী শেখ সাইদুল ইসলামকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির তিন পুলিশ সদস্যের জবানবন্দিতে রায়হান হত্যায় আশেক এলাহীর নাম আসে। তিনি রায়হানকে নগরীর কাষ্টঘর এলাকা থেকে হাতকড়া পরিয়ে ধরে নিয়ে আসেন। এ ছাড়া জবানবন্দি দেওয়া তিন পুলিশ সদস্য রায়হানকে নির্যাতনের সময় ঘটনাস্থলে এএসআই আশেক এলাহীকে দেখেছেন।

গত ১১ অক্টোবর সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে নগরীর নেহারিপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে রায়হান আহমদকে গুরুতর আহত অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন বন্দর বাজার ফাঁড়ির এএসআই আশেকে এলাহী। সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে হাসপাতালে মারা যান রায়হান। এ ঘটনায় রায়হানের স্ত্রী হত্যা ও হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইনে থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর বন্দর বাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) আকবরসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়।

Add Comment