স্মিথ অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের কোহলি

স্টিভ স্মিথকে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের কোহলি আখ্যা দিলেন জাস্টিন ল্যাঙ্গার

নিষিদ্ধ হওয়ার আগে বিরাট কোহলির উচ্চতায় তাঁর নামও উচ্চারিত হতো। সেটি বিশ্বের সেরা ব্যাটসম্যান প্রসঙ্গে। কিন্তু গত মার্চে কেপ টাউন টেস্টে বল-বিকৃতি কাণ্ডে জড়িয়ে ১২ মাস নিষিদ্ধ হন স্টিভেন স্মিথ। এরপর থেকেই চলছে ফেরার লড়াই। নিজেকে শোধরাতে সামাজিক কাজকর্মের পাশাপাশি আরও নানারকম পূর্নবাসনমূলক কাজ করছেন স্মিথ। যদিও আগামী বছরের ২৯ মার্চের আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার কোনো সম্ভাবনাই নেই স্মিথের। সেদিন নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ ফুরোবে অস্ট্রেলিয়ার এই সাবেক অধিনায়কের। এদিকে অস্ট্রেলিয়ার কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারের আর তর সইছে না। যত দ্রুত সম্ভব তিনি স্মিথকে দলে পেতে চান।

ল্যাঙ্গার এই প্রসঙ্গে তুলে এনেছেন বিরাট কোহলির প্রসঙ্গ। কোহলি ছাড়া ভারতীয় দল যেমন ভাবা যায় না তেমনি স্মিথ ছাড়া অস্ট্রেলিয়াও। এমন খেলোয়াড় দলের বাইরে থাকলে কার ভালো লাগে! তা যতই নিষিদ্ধ থাকুক না কেন। মেলবোর্নে পরশু ‘বক্সিং ডে’ টেস্টে ভারতের মুখোমুখি হওয়ার আগে স্মিথ প্রসঙ্গে কোহলির উদাহরণই টেনে আনলেন ল্যাঙ্গার। সংবাদ সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়া কোচ বলেন, ‘তাঁর (স্মিথ) সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। পত্রিকায় কিছু পড়ার চেয়ে তাঁর মুখের কথাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। অনেক কঠিন সময় পার করে সে ফিরতে মরিয়া। আমাদেরও তাঁকে ফিরে পেতে তর সইছে না। সে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের বিরাট কোহলি। সত্য এটাই।’

নিষিদ্ধ হওয়ার আগে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পাল্লা দিয়ে রান করেছেন কোহলি-স্মিথ। ল্যাঙ্গারের তুলনাটা তাই একেবারে অমূলক নয়। স্মিথ বল-বিকৃতি কাণ্ডে নিষিদ্ধ হওয়ার আগে তাঁরা দুজন ছিলেন নিজ নিজ দলের প্রাণভোমরা। কোহলি, স্মিথ আর কেন উইলিয়ামসনকে গত বছরও একসঙ্গে বিবেচনা করা হতো বিশ্বের সেরা তিন ব্যাটসম্যান হিসেবে। স্মিথ নিষিদ্ধ হওয়ায় আপাতত এই দৌড় থেকে ছিটকে পড়েছেন। তবে ল্যাঙ্গার স্মিথের দুর্দান্ত ফেরা নিয়ে আশাবাদী, ‘অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরে পারফর্ম করতে সে কতটা মরিয়া তা আমি জানি। ব্যাপারটা ভাবতেই ভালো লাগছে।’ নিষেধাজ্ঞা শেষে স্মিথের সামনে বড় টুর্নামেন্ট বলতে ইংল্যান্ডে ওয়ানডে বিশ্বকাপ।

Add Comment