চৌমুহনীতে নৌকার কর্মীকে হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যা

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভায় তুর্জয় (২২) নামের নৌকা মার্কার এক কর্মীকে হাত-পায়ের রগ কেটে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার নাজিরপুর গ্রামে গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এরপর তুর্জয়কে উদ্ধার করে নোয়াখালী ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর রাতের দিকে তিনি মারা যান। বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান শিকদার এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত তুর্জয় নাজিরপুর গ্রামের ছেরু ভেণ্ডারবাড়ির মানিক মিয়ার ছেলে। চৌমুহনী পৌরসভার মেয়র পদপ্রার্থী ও বর্তমান মেয়র আক্তার হোসেন ফয়সলের সমর্থক ছিলেন তিনি। এর আগে হাসান নামের এক যুবককে হত্যার ঘটনায় করা মামলার ৩ নম্বর আসামি ছিলেন তুর্জয়। সম্প্রতি তিনি জামিনে মুক্ত হয়ে নির্বাচনি কাজ করছিলেন।

এলাকাবাসী ও পরিবারের লোকজনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গতকাল বুধবার নৌকা মার্কার নির্বাচনি প্রচার শেষে বাড়ি ফিরছিলেন তুর্জয়। এ সময় পূর্ববিরোধের জের ধরে নাজিরপুর গ্রামের মোক্তারবাড়ির সামনের রাস্তায় তাকে জোর করে ধরে নিয়ে হাত ও পায়ের রগ কেটে দেওয়ার পর পানিতে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। এ সময় এলাকাবাসী বিষয়টি বুঝতে পারলে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে আহত তুর্জয়কে নোয়াখালী ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে রাতেই মৃত্যু হয় তাঁর।

এলাকাবাসী আরো জানায়, এ ঘটনার পর থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি। আগামী ৩০ ডিসেম্বর চৌমুহনী পৌরসভায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই মাঠ গরম হয়ে উঠছে।

Add Comment