সিডনিতে বাংলাদেশিদের ঈদ উদযাপন

অস্ট্রেলিয়ায়  বুধবার উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হয়ে গেল পবিত্র ঈদুল ফিতর। বাংলাদেশের মতো সিডনিতেও ঈদের দিন বৃষ্টি হয়েছে। সেই সঙ্গে ছিল হিম হিম শীতও। বৃষ্টিস্নাত দিনের শুরুতে দেশটির মুসলমানেরা শরিক হন বিভিন্ন ঈদের জামাতে।

অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত মুসলমান বাংলাদেশিদের মধ্যে খুশির এ ঈদে আনন্দের কোনো কমতি ছিল না। সিডনিতে স্থানীয় বাংলাদেশিরা শুধু বাংলাদেশিদের সঙ্গে একই দিনে ঈদ উদযাপন করেছেন, এমন নয়। বাংলাদেশের আবহাওয়ার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে আজ ঈদের দিন সিডনিতেও দেখা দেয় বৃষ্টি। সেই সঙ্গে হিম হিম শীতও ছিল শহরজুড়ে। বৃষ্টিস্নাত দিনের শুরুতে দেশটির মুসলমানেরা জমায়েত হন বিভিন্ন ঈদের জামাতে।

অস্ট্রেলিয়ায় সিডনিতে সাধারণ কর্মদিবস থাকায় খুব সকাল থেকেই ঈদের জামাত শুরু হয়। লাকেম্বা মাসালা, টপরাইড মসজিদ, হর্নসবি মসজিদ ও আল বায়ান রিজেন্টস পার্ক, চুল্লোরা পাবলিক স্কুল হল, কোগরাহ ও রকডেল মসজিদে জামাত অনুষ্ঠিত। এ ছাড়া সারিহিলস মসজিদ, ব্ল্যাকটাউন ঈদগাহ মাঠ, লাকেম্বার প্যারিপার্ক কমপ্লেক্স, সেফটন মসজিদ, ম্যারিকভিল টাউন হল সেন্টার, অলিম্পিক পার্ক গ্রাউন্ড, রুটিহিল মসজিদসহ আরও কিছু জায়গায় অনুষ্ঠিত হয় ঈদের জামাত।

সিডনির লাকেম্বার বেশ কটি ঈদের জামাতে মুসল্লিদের সঙ্গে দেখা করেন দেশটির বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা টনি বার্ক। ছবি: সংগৃহীত

সিডনির লাকেম্বার বেশ কটি ঈদের জামাতে মুসল্লিদের সঙ্গে দেখা করেন দেশটির বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা টনি বার্ক। ছবি: সংগৃহীত

অস্ট্রেলিয়ার মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

সিডনির বাংলাদেশি-অধ্যুষিত এলাকা লাকেম্বার বেশ কটি ঈদের জামাতে মুসল্লিদের সঙ্গে দেখা করতে আসেন দেশটির বিরোধী দল লেবার পার্টির প্রথম সারির নেতা টনি বার্ক। তিনি এ সময় মুসলামনদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

সিডনিতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা। ছবি: সংগৃহীত

সিডনিতে বৃষ্টি উপেক্ষা করে ঈদ জামাতে নামাজ আদায় করেছেন মুসল্লিরা। ছবি: সংগৃহীত

অন্যদিকে, বাংলাদেশের মতোই আজ সারা দিন প্রবাসী বাংলাদেশিরা বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনের বাসায় বাসায় বেড়িয়েছেন, আড্ডায় মেতেছেন দীর্ঘ সময় নিয়ে। পাশাপাশি, দেশে বন্ধু পরিজনের সঙ্গে অনেকেই দিনভর ফোনালাপে ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নিয়েছেন।

Add Comment