চ্যাম্পিয়ন চেহারা ফিরে পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া

প্রথম দল হিসেবে সেমিফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। ৮ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষেও আছে তারা। দলটিকে চ্যাম্পিয়ন চেহারায় আবিষ্কার করেছেন অ্যালান বোর্ডার।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে বাজির দরে অস্ট্রেলিয়া খুব একটা ওপরে ছিল না। কিন্তু বল মাঠে গড়াতেই পাশার গুটি উল্টে গেছে। প্রথম দল হিসেবে সেমিফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা এখনো পর্যন্ত শুধু ভারতের কাছেই হেরেছে। ৮ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে তারা।

গতকাল লো স্কোরিং ম্যাচেও বড় জয় নিয়ে মাঠে ছেড়েছে তারা। প্রথমে ব্যাট করে ট্রেন্ট বোল্টের তোপে ২৪৩ রানেই থেমে যায় অস্ট্রেলিয়া। মারকাটারি ব্যাটিংয়ের এ যুগে ২৪৩ রান করে স্বস্তিতে থাকতে পারে খুব কম দলই। কিন্তু এমন লো স্কোরিং ম্যাচেও আয়েশি জয় তুলে নিয়ে নিজেদের দাপট ধরে রেখেছে অস্ট্রেলিয়া। ১৫৭ রানেই নিউজিল্যান্ডকে থামিয়ে দিয়ে পেয়েছে ৮৬ রানের বড় জয়। মিচেল স্টার্কদের এমন দাপুটে পারফরমেন্স দেখে অনেকে অতীতের অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বর্তমান দলটিকে মেলানোর চেষ্টা করছে। মনে পড়ছে অপরাজেয় হয়ে ওঠা সেই অস্ট্রেলিয়া দলটির কথা।

বর্তমান দলটির মধ্যেও সেই রসদ দেখছেন সাবেক অস্ট্রেলিয়ান তারকা অ্যালান বোর্ডার, ‘ধীরে শুরু করার পর অস্ট্রেলিয়া এখন প্রয়োজন অনুযায়ী খেলতে শুরু করেছে এবং গতকাল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের পর পুরোনো দিনের অনুভূতি ফিরে এসেছে। যা বিশ্বকাপ জয়ের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।’

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৭ ম্যাচে জয় পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তবে গতকালের জয়ের স্বাদটা একটু ভিন্ন। কারণ ২৪৩ রান করে ৮৬ রানের বড় জয়। তাই এই জয়টিকে এগিয়ে রাখছেন বোর্ডার, ‘গতকালের জয়টি দারুণ ছিল। কারণ জয় পাওয়াটা ছিল কঠিন কাজ। এই টুর্নামেন্টে টপ অর্ডার অ্যারন ফিঞ্চ, ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথের ওপর বেশি নির্ভরতা ছিল। কিন্তু গতকাল তাদের ব্যর্থতায় নিচের দিকের ব্যাটসম্যানরা ভালো করেছে। এটি খুব ভালো লক্ষণ।’

গতকাল বল হাতে আগুন ঝরিয়েছেন স্টার্ক। এর আগে ব্যাট হাতে প্রতিরোধ গড়ার কাজটা করেছেন অ্যালেক্স ক্যারি। উইকেট রক্ষক এই ব্যাটসম্যানের হাতেই উঠেছে ম্যাচ সেরার পুরস্কার। বোর্ডার নিজেও ক্যারিকে বসিয়েছেন নায়কের আসনে, ‘কোনো সন্দেহ ছাড়াই সে আমার ম্যাচ সেরা। ক্যারিকে ছাড়া গতকাল ১৫০ রানও করতে পারত না অস্ট্রেলিয়া।’

Add Comment